বাংলাদেশ রেলওয়ে দুই পদে নিয়োগ দেবে ১,৩২২ জন

বাংলাদেশ রেলওয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত দুই পদে নিয়োগ দেওয়া হবে ১ হাজার ৩২২ জন। এর মধ্যে সহকারী স্টেশনমাস্টার পদে নেওয়া হবে ৫৬০ জন এবং পয়েন্টসম্যান পদে ৭৬২ জন। দুই পদে আবেদনের জন্য যোগ্যতা আলাদা। সহকারী স্টেশনমাস্টার পদে দেশের সব জেলার প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। পয়েন্টসম্যান পদে পাবনা ও লালমনিরহাট জেলা ছাড়া বাকি ৬২ জেলার প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। তবে এতিম ও শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং রেলওয়ে পোষ্য কোটায় সব জেলার প্রার্থীর আবেদনের সুযোগ রয়েছে।

সহকারী স্টেশনমাস্টার

সহকারী স্টেশনমাস্টার পদে আবেদন করতে চাইলে আগ্রহী প্রার্থীকে অবশ্যই স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যেকোনো বিষয়ে অন্যূন দ্বিতীয় শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএসহ স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে। এ বছরের ১ সেপ্টেম্বর যাঁদের বয়স ১৮ পূর্ণ হয়েছে, তাঁরা আবেদন করতে পারবেন। গত বছরের ২৫ মার্চে যে প্রার্থীর বয়স ৩০ বছর হয়েছে, তাঁরাও আবেদনের যোগ্য হবেন। তবে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও শারীরিক প্রতিবন্ধী আবেদনকারীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়সসীমা একই দিনে ৩২ বছর। এ পদে ইতিমধ্যে আবেদন শুরু হয়েছে। ২২ নভেম্বর বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। এ পদে নিয়োগ পেলে বেতন স্কেল হবে ৯,৭০০-২৩,৪৯০ টাকা। বেতন গ্রেড ১৫।

পয়েন্টসম্যান

পয়েন্টসম্যান পদে আবেদন করতে হলে কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে কমপক্ষে এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। এ ছাড়া প্রার্থীকে সুঠাম দেহের অধিকারী হওয়া আবশ্যক। যেসব প্রার্থীর বয়স ২০২১ সালের ১৫ নভেম্বর ১৮ বছর পূর্ণ হবে এবং ২০২০ সালের ২৫ মার্চ তারিখে ৩০ বছর হয়েছে, তাঁরা আবেদনের যোগ্য। তবে বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে বয়স সর্বোচ্চ ৩২ হলেও আবেদন করা যাবে। বয়স প্রমাণের ক্ষেত্রে অ্যাফিডেভিট গ্রহণযোগ্য নয়।

পয়েন্টসম্যান পদে অনলাইনে আবেদন ও পরীক্ষার ফি জমা শুরু হবে ২৩ নভেম্বর সকাল ১০টা থেকে। আবেদনের শেষ দিন ২৮ ডিসেম্বর। এ পদে নিয়োগ পেলে জাতীয় বেতন স্কেলের ১৮তম গ্রেডে স্কেল হবে ৮,৮০০-২১,৩১০ টাকা।

আবেদন পদ্ধতি ও ফি

দুই পদের জন্য একই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। আগ্রহী যোগ্য প্রার্থীদের এ ওয়েবসাইটের www.br.teletalk.com.bd মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদন ফরম সঠিকভাবে পূরণের পর ছবি ও স্বাক্ষর আপলোড করতে হবে। ৩০০-৩০০ সাইজের ছবি ও ৩০০-৮০ সাইজের স্বাক্ষর স্ক্যান করে যুক্ত করতে হবে। আবেদনপত্র সাবমিট করার পর ইউজার আইডি, ছবি ও স্বাক্ষরযুক্ত একটি আবেদন কপি দেওয়া হবে। এই ইউজার আইডি ব্যবহার করে টেলিটক নম্বরের মাধ্যমে সহকারী স্টেশনমাস্টার পদে পরীক্ষার ফি ১১২ টাকা জমা দিতে হবে এবং পয়েন্টসম্যান পদের জন্য পরীক্ষার ফি বাবদ ৫৬ টাকা আবেদনের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে জমা দিতে হবে। আবেদনপত্রের সব অংশ পূরণ করে সাবমিট করা হলেও পরীক্ষার ফি জমা না দেওয়া পর্যন্ত আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে না। আবেদনপত্রে প্রার্থী যে মুঠোফোন নম্বর দেবেন, তা সব সময় সচল রাখতে হবে। কারণ, পরবর্তী সময়ে পরীক্ষাসংক্রান্ত সব তথ্য এ মুঠোফোনে খুদে বার্তার মাধ্যমে পাঠানো হবে।

আবেদন করার পর মুঠোফোনে খুদে বার্তার মাধ্যমে ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড পাঠানো হবে। এটি ব্যবহার করে রোল নম্বর, পদের নাম, ছবি, পরীক্ষার তারিখ, সময় ও কেন্দ্রের নামসংবলিত প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে হবে। এই প্রবেশপত্র লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সময় এবং উত্তীর্ণ হলে মৌখিক পরীক্ষার সময় অবশ্যই দেখাতে হবে।

অনলাইনে আবেদন করতে কোনো সমস্যা হলে টেলিটক নম্বর থেকে ১২১ নম্বর অথবা vas.query@ teletalk.com.bd ই-মেইলে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। অনলাইনে আবেদন এবং টাকা জমা দেওয়ার কাজ প্রার্থী নিজেকেই করতে হবে। এ ক্ষেত্রে অন্য কোনো মাধ্যম থেকে আবেদন করে প্রার্থী প্রতারিত হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না। শেষ তারিখ ও সময়ের জন্য অপেক্ষা না করে হাতে সময় নিয়ে আবেদনপত্র পূরণ ও ফি জমা দিতে বিজ্ঞপ্তিতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সহকারী স্টেশনমাস্টার ও পয়েন্টসম্যান পদের জন্য সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত প্রার্থীদের অবশ্যই যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। বাংলাদেশ রেলওয়েতে যাঁরা কমপক্ষে ২০ বছর চাকরি করেছেন, তাঁদের সন্তানেরা পোষ্য কোটার সুবিধা পাবেন। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে মৌখিক পরীক্ষার সময় সব সনদের মূল কপিসহ এক সেট সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে এবং পূরণকৃত আবেদন ফরমসহ সত্যায়িত এক সেট ফটোকপি জমা দিতে হবে। জেলার স্থায়ী বাসিন্দার প্রমাণ হিসেবে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/পৌরসভা মেয়র/সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলরের স্বাক্ষরসহ নাগরিকত্ব সনদ, জাতীয় পরিচয়পত্রের মূল কপি ও মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে বীর মুক্তিযোদ্ধা সনদের মূল কপি জমা দিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *