ব্যবসার জন্য সেরা কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং মেথড (প্রথম পর্ব)

integrateagency.com
Two people working together on laptop at office with technological pattern

একটা ব্যবসাকে একেবারে মূল থেকে গড়ে তোলার জন্য মার্কেটিং অর্থাৎ প্রচারণার জুড়ি নেই। যত বেশি মার্কেটিংয়ের সাথে আপনি জড়িত থাকবেন তত বেশি আপনার ব্যবসা সম্পর্কে মানুষ জানতে পারবে। আর যত বেশি মানুষ আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানতে পারবে তত বেশি মানুষ আপনার ক্রেতাদের কাতারে যোগ হবে। কিন্তু আমরা একেবারেই সাধারন কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং মেথড ব্যতীত অন্য কোনো ধরনের মার্কেটিংয়ের সাথে পরিচিত নই। দু পর্বের এই ফিচারে আমি এমন কিছু মার্কেটিং মেথড আলোচনা করবো যেগুলো আপনার মার্কেটিং চিন্তাধারাকে বদলে দিতে সক্ষম। চলুন তাহলে আজকে প্রথম পর্ব শুরু করা যাক, যেখানে আমি ব্যবসার জন্য সেরা কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং মেথড।

ডিজিটাল মার্কেটিং দ্বারা বর্তমানে মার্কেটিং করা সহজ হয়ে গিয়েছে; Source: digitalmarketer.com

কল টু অ্যাকশন বাটন যুক্ত করা

একটি কল টু অ্যাকশন বাটন যুক্ত করার জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার ক্রেতা এবং তাদের ইচ্ছাকে ট্রিগার করবে এমন কিছু বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, বড় বড় বাণিজ্যিক ও অনলাইন দোকানের ক্ষেত্রে তারা কল টু অ্যাকশনের বদলে মূলত ইমেইল বাটন যুক্ত করে থাকে। একইভাবে আপনি যদি মনে করেন যে, কল টু অ্যাকশন বাটন আপনার জন্য কাজ করবে না তাহলে আপনি এর পরিবর্তে ‘ডাউনলোড করুন’ অথবা ‘বিনামূল্যে ই-বুক পান’ বা ‘তথ্য জমা দিন’ কিংবা ‘বিনামূল্যে উদ্ধৃতি পান’ টাইপের বাটন যুক্ত করতে পারেন।

কল টু একশন বাটন যুক্ত করে ভিজিটর বাড়ান; Source: lpswebdesign.com

এডিটোরিয়াল ক্যালেন্ডার যুক্ত করুন

আপনার সাইটে প্রত্যেকদিন নতুন নতুন কন্টেন্ট প্রদর্শিত হবে। আপনি সবসময় সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যানিং অথবা মার্কেটিং অপ্টিমাইজেশান বা গ্রাহক সম্পর্ক তথ্য বিশ্লেষণ করার কাজে ব্যস্ত থাকবেন। আর তাই আপনার পক্ষে নতুন নতুন কন্টেন্ট আসলেই সেটাকে আপডেট করা সম্ভব নাও হতে পারে। আর তাই আপনার উচিৎ এডিটোরিয়াল ক্যালেন্ডার ব্যবহার করা। এডিটোরিয়াল ক্যালেন্ডার হচ্ছে এমন একটি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন যার মাধ্যমে আপনি প্রতিটি সাবস্ক্রাইবার, ইউজার ও লেখকের জন্য টাস্কগুলিকে একসাথে তুলে এনে রাখতে পারবেন। যা সাধারণভাবে করতে গেলে অনেক সময়ের প্রয়োজন পড়বে।

এডিটোরিয়াল ক্যালেন্ডার দিয়ে সহজে কন্টেন্ট অপ্টিমাইজ করুন; Source: insights.bio

কন্টেন্ট সিন্ডিকেশন করুন

কন্টেন্ট সিন্ডিকেশন হচ্ছে তৃতীয় পক্ষের সাইটগুলিতে আপনার কন্টেন্টগুলোকে প্রকাশ করা। আর এজন্য আপনাকে আপনার কন্টেন্টের সাথে মিল রয়েছে এমন তৃতীয় পক্ষের ওয়েবসাইটগুলোকে খুঁজে পেতে হবে। কন্টেন্টের সাথে যদি আপনি আপনার সাইটের তথ্য ব্যাকলিংক করে দিতে পারেন তাহলে খুব সহজেই আপনার সাইটে ভিজিটর বাড়তে থাকবে। একবার যখন আপনি আপনার আর্টিকেলটিকে আপনার সাইটের মতো আরেকটি বড় সাইটে পুনঃপ্রকাশ করবেন, তখন আপনি একটি নতুন দর্শক ক্যাটাগরির কাছে পৌঁছাতে পারবেন এবং একইসাথে উচ্চমাত্রার ট্র্যাফিকও পেতে শুরু করবেন।

আপনার আর্টিকেলগুলোকে সিন্ডিকেশনের মাধ্যমে পরিচালনা করুন; Source: expresswriters.com

স্লাইডশেয়ার ব্যবহার করুন

স্লাইডশায়ার মূলত প্রেজেন্টেশন দেখানোর জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ একটি ওয়েবসাইট ও প্লাটফর্ম। যদিও এটা মূলত বিটুবি কোম্পানিগুলোর জন্য সেরা একটি মাধ্যম। নিউইয়র্কের বিজ্ঞাপন সংস্থা ডিডিট মার্কেটিংয়ের করা একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, স্লাইডশেয়ার দ্বারা মার্কেটিংয়ের ফলে আপনার ব্যবসার তথ্য ফেসবুক, টুইটার বা ইউটিউব থেকে বেশি মানুষের কাছে পৌঁছায় যার ফলে আপনার সাইট প্রায় ৫০০% বেশি ট্র্যাফিক পায়। মনে রাখবেন যে, স্লাইডশেয়ার কিন্তু প্রত্যেক মাসে প্রায় লক্ষ-কোটি ট্র্যাফিক পেয়ে থাকে, যার ফলে আপনার তথ্যগুলো যদি সঠিক না হয় তাহলে আপনার পক্ষে ট্র্যাফিক ধরে রাখা বেশ কষ্টকর হয়ে যাবে।

স্লাইডশেয়ার আপনার সাইটের ভিজিটর অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি করতে সক্ষম; Source: salesforce.com

কাস্টোমারদের কেইস স্টাডি দেখান

আমরা অনেকেই মনে করে থাকি যে, ক্রেতারা শুধুমাত্র শব্দ বা বাক্যের মাধ্যমেই বৃদ্ধি করা সম্ভব। কিন্তু ব্যাপারটা সম্পূর্ণ উলটো। কেইস স্টাডির মাধ্যমে আপনি সংখ্যা ও পরিসংখ্যানের বর্ণনা দিয়েও বেশ ভালো পরিমাণ ট্র্যাফিক বৃদ্ধি করতে পারবেন। আপনার পন্য ও সার্ভিসের ভ্যালু ও ফলাফল যদি বেশ ভালো হয়ে থাকে তাহলে শুধুমাত্র সংখ্যা দেখিয়েই আপনার ক্রেতাদের আপনি আকৃষ্ট করতে সক্ষম হবেন। ফোর্বসের সেরা দশ ডিজিটাল মার্কেটারদের মধ্যে একজন , নেইল পাটেলের একটি পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে, তার সাইটে কেইস স্টাডি যুক্ত করার ফলে তিনি ১৮৫% রেভিনিউ বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছেন।

ক্রেতারা কেইস স্টাডি পছন্দ করে থাকে; Source: hubspot.com

ব্যাকলিংক তৈরি করুন

ধরুন আপনার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে যেটার অ্যালেক্সাতে ৩০ হাজারের বাইরে অবস্থান করছে। আপনি যদি আপনার পার্টনার কিংবা অন্য যেকোনো সাইটে আপনার সাইটের লিংক ডু-ফলো হিসেবে যুক্ত করে দিতে পারেন, যেটাকে বলা হয় ব্যাকলিংক করা; তাহলে আপনি কয়েক দিনের মধ্যেই আপনার সাইটকে ৩০ হাজারের ভেতরে দেখতে পারবেন। একটা ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক বেশ কাজের হয়ে থাকে। বিশেষ করে আপনার সাইটকে যদি র‍্যাংক করাতে চান, তাহলে ব্যাকলিংকের জুড়ি নেই।

ব্যাকলিংক আপনার র‍্যাংক বাড়াবে; Source: shoutmeloud.com

রিভিউ সাইটগুলোতে যুক্ত হোন

অনেক ধরণের ওয়েবসাইট রয়েছে, যাদের মধ্যে রিভিউ সাইটগুলো মূলত বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও কোম্পানির রিভিউ দিয়ে থাকে ও র‍্যাংকিং করে থাকে। আপনি যদি আপনার সাইটকে সেসব রিভিউ সাইটগুলোতে শুরুর দিকে নিয়ে যেতে পারেন তাহলে বেশ ভালো পরিমান ট্র্যাফিক জেনারেট করতে পারবেন। একটা পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে যে, দশজনের মধ্যে নয়জনই কোনো পণ্য ক্রয় করার পুর্বে অনলাইনে এসব রিভিউ সাইট দেখে থাকে।

রিভিউ সাইটগুলো আপনার ক্রেতা বাড়াতে সক্ষম; Source: wpforms.com

গুগল ট্রেন্ড ফলো করুন

গুগল ট্রেন্ড হচ্ছে এমন একটি ওয়েবসাইট যেখানে আপনি বিভিন্ন কী-ওয়ার্ড সম্পর্কিত তথ্য পাবেন। যার ফলে আপনার ব্যবসার ক্ষেত্রে, যেসব কী-ওয়ার্ড গুগলে শুরুতে আছে সেগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে ট্র্যাফিক বৃদ্ধি করা সম্ভব। ধরুন, এই সপ্তাহে ‘অনলাইন থেকে আয়’ কী-ওয়ার্ডটি বেশ ভালো অবস্থানে আছে। তাহলে, আপনি যদি এই সম্পর্কিত কোনো কন্টেন্ট আপনার সাইটে আপলোড করে তারপর এই কী-ওয়ার্ডটাকে ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে খুব সহজেই আপনার সাইটটি বেশ ভালো অবস্থানে চলে আসবে।

গুগল ট্রেন্ডের মাধ্যমে ক্রেতা খুঁজে পান ; Source: impossible.sg

মোবাইল ইউজারদের জন্য এএমপি ব্যবহার করুন

এএমপি হচ্ছে অ্যাক্সিলারেটেড মোবাইল পেইজ। অর্থাৎ আপনার সাইটটিকে আপনি যদি মোবাইল অপ্টিমাইজড করতে পারেন তাহলে স্বাভাবিকভাবেই মোবাইল ইউজাররা আপনার সাইটটি ব্যবহার করে আনন্দ পাবে। যার ফলে আপনার ক্লিক থ্রু রেট ও ইম্প্রেশন বাড়তে থাকবে। সাইটকে মোবাইল অপ্টিমাইজ করার মাধ্যমে আপনার পক্ষে প্রায় ৪০ শতাংশ ইউজার বৃদ্ধি করা সম্ভব।

Featured Image: integrateagency.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *