ব্যবসার জন্য সেরা কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং মেথড (দ্বিতীয় পর্ব)

upqode.com

একটা ব্যবসাকে একেবারে মূল থেকে গড়ে তোলার জন্য মার্কেটিং অর্থাৎ প্রচারণার জুড়ি নেই। যত বেশি মার্কেটিংয়ের সাথে আপনি জড়িত থাকবেন তত বেশি আপনার ব্যবসা সম্পর্কে মানুষ জানতে পারবে। আর যত বেশি মানুষ আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানতে পারবে তত বেশি মানুষ আপনার ক্রেতাদের কাতারে যোগ হবে। কিন্তু আমরা একেবারেই সাধারন কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং মেথড ব্যতীত অন্য কোনো ধরনের মার্কেটিংয়ের সাথে পরিচিত নই। দু পর্বের এই ফিচারে আমি এমন কিছু মার্কেটিং মেথড আলোচনা করবো যেগুলো আপনার মার্কেটিং চিন্তাধারাকে বদলে দিতে সক্ষম। চলুন তাহলে আজকে দ্বিতীয় পর্ব শুরু করা যাক, যেখানে আমি ব্যবসার জন্য সেরা কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং মেথড। প্রথম পর্ব পড়ুন এখানে

ডিজিটাল মার্কেটিং আপনাকে ক্রেতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে; Source: multichannelmerchant.com

মিডিয়াম নেটওয়ার্ক তৈরি করুন

মিডিয়াম হচ্ছে একটিউ সোশ্যাল নেটওয়ার্কের মতো যেখানে বিভিন্ন ধরণের মানুষ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করে থাকেন। এখানে আপনি প্রত্যেক মাসে আপনার লেখা বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন, যেমন আপনার রিডাররা কতক্ষণ আপনার লেখাগুলোকে পড়েছে, তাদের ক্লিক ও আপনার ভিজিটরদের অবস্থান ইত্যাদি। গ্রোথসাপ্লাই ডট কমের ফাউন্ডার আলি মেসের মতে, মিডিয়াম হচ্ছে সবচেয়ে চমৎকার একটি পদ্ধতি যেখান থেকে আপনি টার্গেটেড কাস্টোমার পেতে পারেন। মাত্র এক হাজার কিংবা পনেরশ’ শব্দের একটি আর্টিকেলের জন্য তিনি প্রায় চার মিলিয়ন পেইজভিউ পেয়েছেন।

মিডিয়ামের মাধ্যমেও ট্র্যাফিক জেনারেট করা সম্ভব; Source: medium.com

ফেসবুক পেইজকে কাস্টোমাইজ করুন

ফেসবুক হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াগুলোর মধ্যে সবচেয়ে অ্যাক্টিভ ও অসাধারণ কাস্টোমাইজেবল একটি মার্কেটিং মেথড। ফেসবুকে পেইজের মাধ্যমে বর্তমানে কোনো সাইট ছাড়াই ব্যবসা করা সম্ভব হয়ে গিয়েছে। ফেসবুককে যদি সঠিকভাবে অপ্টিমাইজ করা যায় তাহলে বেশ ভালো পরিমান টার্গেটেড ক্রেতা পাওয়া যেতে পারে। সোশ্যাল স্ট্যাকড নামের একটি কোম্পানি দেখিয়েছে যে, শুধুমাত্র তাদের কাস্টোমাইজড ফেসবুক পেইজ থেকে প্রত্যেকদিনে প্রায় ৪০ শতাংশ বেশি ক্রেতা পাওয়া সম্ভব হচ্ছে।

কাস্টোমাইজড ফেসবুক পেইজ আপনাকে টার্গেটেড ক্রেতা দেবে; Source: bluecorona.com

লিংকডিন পালস ব্যবহার করুন

লিংকডিন পালস হচ্ছে প্রফেশনাল সেলফ পাবলিশিং প্লাটফর্ম। যদিও শুরুতে যে কেউ এখানে লিখতে পারতো কিন্তু বর্তমানে সিলেক্টেড ৫০০ জন শুধুমাত্র লিখতে পারেন। কাপকো নামে একটি কোম্পানির মতে, লিংকডিন পালস মূলত ব্লগিং ও সোশ্যাল নেটওয়ার্কে পোস্টিং, এই দুটোর থেকে বেশ আলাদা। প্রত্যেক মাসে লেখকরা এখানে প্রায় ৫০ হাজারের বেশি আর্টিকেল লিখছেন। স্মল বিজনেস আইডিয়া নামক একটি সাইটের একজন ব্লগার ব্রায়ান ল্যাঙের করা একটি সমীক্ষাতে দেখা গিয়েছে যে, পালসের বেশিরভাগ আর্টিকেলের মধ্যে ৪২ শতাংশ ক্যারিয়ার, ১৫ শতাংশ ব্যবসা ও অন্যান্য বিষয় মিলে বাকিপোস্টগুলো রয়েছে।

লিংকডিন পালসের মাধ্যমে ভিজিটর বাড়ান; Source: impactbnd.com

রেডিটকে ব্যবসার কাজে ব্যবহার করুন

২০০৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত রেডিটের ফলোয়ার বেড়েই চলছে। এখানে মূলত আপনি আপনার ক্যাটাগরির মানুষ খুঁজে পাবেন। এখানে বিভিন্ন তথ্যের পাশাপাশি আপনি খবর, ব্লগ এমনকি অন্য মানুষের সাথে কথাও বলতে পারবেন। আপনি যদি পোস্ট করার বদলে এখানে লিংক ব্যবহার করেন, যেটা মূলত আপনার ওয়েবসাইটের তাহলে আপনি এখান থেকে বেশ ভালো পরিমান ট্র্যাফিক পেতে পারেন।

রেডিটকে কাস্টোমার বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করুন; Source: redditinc.com

অনলাইন কমিউনিটিতে মার্কেটিং করুন

বিভিন্ন অনলাইন কমিউনিটিতে, যেমন: ফেসবুক, টুইটার, রেডিট, মিডিয়াম ইত্যাদি; আপনার সাইটের মার্কেটিং করে বেশ সহজেই কাস্টোমার পেতে পারেন। কারণ, অনলাইন কমিউনিটিগুলোতে মূলত টার্গেটেড কাস্টোমার থাকে যারা বিভিন্ন ধরণের তথ্য ও খবরের জন্য এসবে প্রবেশ করে থাকে। যার ফলে আপনাকে শুধুমাত্র আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্সকে খুঁজে বের করতে হবে। আর তাহলে খুব সহজে সেখানে আপনার প্রচারণা চালিয়ে বেশ ভালো পরিমাণ ট্র্যাফিক সংগ্রহ করতে পারবেন।

অনলাইন কমিউনিটিকে ট্র্যাফিক বৃদ্ধিতে ব্যবহার করুন; Source: erthink.com

ইমেইল মার্কেটিং করুন

ইমেইল মার্কেটিং হচ্ছে, ইমেইলের মাধ্যমে আপনার পণ্য সম্পর্কে বর্ণনা করে ক্রেতাদের মেইল করা। প্রত্যেকটা মানুষ প্রতিদিন বা প্রতি সপ্তাহে অন্তত একবার হলেও তার ইমেইল চেক করে থাকেন। যার ফলে আপনি যদি টার্গেটেড কাস্টোমারদের ইমেইল সংগ্রহ করতে পারেন তাহলে তাদের কাছে আপনার অফার ও ডিসকাউন্ট সম্পর্কে সরাসরি মেইল করতে পারবেন। যা তাদেরকে আপনার পণ্যের প্রতি আগ্রহী করে তুলবে।

ইমেইল মার্কেটিং ক্যাম্পেইন শুরু করুন; Source: hubspot.com

অনলাইন ক্যাম্পেইন করুন

বিভিন্ন ধরণের অনলাইন ক্যাম্পেইন ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোতে আপনি খুব সহজেই একাউন্ট তৈরি করে আপনার পণ্যের ক্যাম্পেইন করতে পারেন। যদি আপনার সার্ভিস ননপ্রফিট হয়ে থাকে তাহলে বেশি পরিমাণ ট্র্যাফিক আশা করতে পারেন। তবে আপনি যদি আপনার ব্যবসার পাশাপাশি আপনার সাইটের জন্য ট্র্যাফিক পেতে চান তাহলে সেই ক্যাম্পেইনগুলো করার পাশাপাশি আপনার সাইটের লিংকও যুক্ত করে দেবেন। একইসাথে ব্যাকলিংক হয়ে গেলে আপনার সাইটের র‍্যাংক বৃদ্ধির পাশাপাশি ট্র্যাফিকও বৃদ্ধি পাবে।

আপনার পণ্যের জন্য অনলাইনে ক্যাম্পেইন করুন; Source: delosinc.com

ইনফ্লুয়েন্সারদের সাথে যুক্ত হোন

ইনফ্লুয়েন্সার, যারা মূলত বিভিন্ন ক্যাম্পেইনে আপনাকে সাহায্য করবে ও যারা আপনার পূর্বেই বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে তাদের সাথে যুক্ত হওয়ার চেষ্টা করুন। তাদের সাথে তোলা ছবি কিংবা তাদের দ্বারা কোনো প্রমোশন আপনার সাইটের জন্য অস্বাভাবিক রকমের ট্র্যাফিক নিয়ে আসবে। আপনি যদি কিছু পরিমাণ অর্থ খরচ করেও আপনার সাইটটাকে ইনফ্লুয়েন্সার দ্বারা প্রমোট করাতে পারেন তাহলে খুব সহজেই আপনার সাইটে ভিজিটর নিয়ে আসা সম্ভব হবে।

ইনফ্লুয়েন্সারদের সাথে যুক্ত হোন; Source: influencerdb.com

সোশ্যাল মিডিয়া পেইড প্রমোশন

বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া, যেমন: ফেসবুক বুস্টিং, ইউটিউব রেড, ইন্সটাগ্রাম বুস্টিং ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া পেইড প্রমোশন করাটা খুবই জরুরী। কারণ, তারা মূলত আপনার পণ্যের জন্য একেবারে টার্গেটেড কাস্টোমারদের কাছে আপনার পণ্য সম্পর্কে তথ্য পৌঁছে দিতে পারে। যার ফলে আপনি যদি আপনার সাইটের জন্য ভিজিটর কিংবা ক্রেতা বৃদ্ধি করতে চান, তাহলে বুস্টিং কিংবা পেইড প্রমোশন আপনাকে বেশ সাহায্য করবে।

সোশ্যাল মিডিয়া বুস্টিংয়ের মাধ্যমে টার্গেটেড কাস্টোমার পাওয়া সম্ভব; Source: smartdatacollective.com

রিটার্গেটিং করুন

ইমেইল মার্কেটিং, ইনফ্লুয়েন্স মার্কেটিং কিংবা বিভিন্ন মার্কেটিং মেথডের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, আমরা বিভিন্ন ধরণের তথ্য সংগ্রহ করার পরেও আমাদের ভিউ বাড়ছে কিন্তু ট্র্যাফিক বাড়ছে না। আর সেজন্য আমাদের প্রয়োজন রিটার্গেটিং। আপনার পন্য বা সেবার প্রমোশনের পর একটা নির্দিষ্ট সময়ের অপেক্ষার শেষে যখন আপনার পণ্য বা সেবার কাস্টোমারদেরকে পুনরায় রিনিউ করবেন, সেই পদ্ধতিটাই হচ্ছে রিটার্গেটিং।রিটার্গেটিং করে যদিও ক্রেতা পাওয়া যাবে না কিন্তু আপনি এটা বুঝতে পারবেন যে আপনার কাদের কাছে যাওয়া উচিত।

Featured Image: upqode.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *