অলস বসে চায়ের কাপ হাতে নিয়ে ম্যাগাজিনের পাতা উল্টানোর সাথে আরামদায়ক অলসতা ছড়িয়ে পড়া। এই চমৎকার অনুভূতির সাথে যদি কাজের কিছু শিখেও নেয়া যায় মন্দ হয় না। চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক কীভাবে ম্যাগাজিন বিদেশী ভাষা শেখার গতিকে ত্বরান্বিত করতে পারে।

সব কিছু বাদ দিয়ে ম্যাগাজিন কেন ?

ম্যাগাজিন, তাও আবার বিদেশী ভাষা শেখার জন্য! অদ্ভুত লাগছে তাই না? যেমনই লাগুক নতুন ভাষা শেখার জন্য ম্যাগাজিন বেশ ভালো একটি মাধ্যম।

ম্যাগাজিন আকর্ষণীয়

ম্যাগাজিনের বিষয় গুলোও বেশ আকর্ষণীয় এবং আনন্দদায়ক। অন্যদিকে ম্যাগাজিনে এমন ভাবে লেখা হয় যেন পাঠক পড়ার জন্য আকর্ষণ পায়। তাই আনন্দের মাঝে নিজের অজান্তেই শিখতে শুরু করবেন ম্যাগাজিন থেকে।

Source: unsplash.com

ছবি শিখতে সাহায্য করে

ছবি নিয়ে একটি গল্প আছে, বাংলাদেশের বিখ্যাত চিত্রশিল্পী জয়নাল আবেদীন প্রবাসে গেলেন। কিন্তু ঐ দেশের ভাষা না জানার কারণে খাবার দাবার ঠিক মতো অর্ডার করতে ঝামেলা পোহাতে হচ্ছিল। শেষমেশ ছবি একে বোঝালেন তার কী দরকার।

আচ্ছা গল্প বাদই দিলাম। মনে আছে, একেবারে ছোট বেলায় কীভাবে শিখেছি আমরা ছবির বই থেকে? রূপকথার গল্পের বইগুলোর কথা মনে পড়ে? ছবি দেখে শেখা বেশ ধীর পদ্ধতি হলেও অনেক বেশি কার্যকর।

ম্যাগাজিনের কন্টেন্ট ঐ দেশের সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে সাহায্য করে। ম্যাগাজিনের কন্টেন্ট গুলো বেশ চমৎকৃত করে তৈরি করা হয় পাঠক আকর্ষণের জন্য। যার মাধ্যমে কোনো দেশের সংস্কৃতি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া সহজ হয়ে যায়। ভাষা সংস্কৃতির অন্যতম উপাদান। কোনো দেশের সংস্কৃতি না জেনে ঐ দেশের ভাষা শিখতে গেলে শেষে হিতে বিপরীত হতে পারে।

একজন শিক্ষানবিস শুরু করতে পারে কীভাবে?

ভাষার কিছুই জানেন না আর পড়তে শুরু করতে হবে? পাগলের প্রলাপ মনে হচ্ছে? এরকম মনে করার কোনো কারণ নেই। পড়া মানে হচ্ছে ভাবের আদান প্রদান। কিছু না জেনেও আপনি ওটা করতে পারেন তাই অবাক হবার কিছু নেই।

Source: unsplash.com

শুরু করুন আপনার লেভেল থেকে

আপনার লেভেল থেকে শুরু করাই হবে আপনার প্রথম কাজ। ধরলাম আপনি কিছুই জানেন না। আপনি আপনার মতো করে সহজ কোন কিছু দিয়ে শুরু করুন। আপনি বিজ্ঞানের বানান জানেন না আর আপনাকে বলা হচ্ছে রকেট সায়েন্স পড়তে এমনটা নয় কিন্তু।

আপনি যদি বিজ্ঞানের বানান না জানেন তবে শুরু করুন বানান শেখার মাধ্যমেই। ভাষা জ্ঞান যদি একেবারেই প্রাথমিক লেভেলের হয়, বেছে নিতে পারেন শিশুতোষ কোনো ম্যাগাজিন।

চাপ নেবেন না

আগেই বলে নিই প্রথম দিকে হয়তো আপনাকে কিছুটা সমস্যায় পড়তে হবে। আমরা যে সব প্রচলিত নিয়মে ভাষা শিখি স্কুল কলেজে, ম্যাগাজিন তাদের থেকে একদমই আলাদা। ম্যাগাজিন পড়ার সময় ক্লাসরুমের মতো ধরে ধরে ক্রিয়া, কাল, লিঙ্গ ইত্যাদি বিষয় গুলো আলাদা করে পড়তে হবে না। অনেক কিছুই পাবেন এমন যার কিছুই বুঝবেন না। কিন্তু তাই বলে চাপ নেয়া চলবে না। অভ্যস্ত হতে সময় লাগবে এবং ঠিকও হয়ে যাবে। একসময় আপনি শেখাকে উপভোগ করতে শুরু করবেন।

Source: unsplash.com

নোটবুক রাখুন

পড়তে পড়তে নোট নেবার পদ্ধতিটি বেশ কাজের। পড়তে পড়তে যে শব্দে সমস্যা মনে হবে নোট বুকে টুকে রাখুন। অর্থ উদ্ধার করুন আপনার ডিকশনারি অথবা অনুবাদক অ্যাপ থেকে।

গুছান, গুছান এবং গুছান

গুছিয়ে কাজ করা যে কোন কাজে সফল হওয়ার মূলমন্ত্র। প্রতিদিন রুটিন করে কিছুটা সময় রাখুন ম্যাগাজিন পড়ার জন্য। দুর্বোধ্য শব্দগুলো টুকে রাখুন। কঠিন শব্দ গুলো বারবার অনুশীলন করুন। গুছিয়ে ঠিক করুন আপনি কীভাবে কতদিনে শিখতে চান।

নিজেকে প্রকাশ করতে শিখুন

কোনো কিছু শেখার পর সবচেয়ে যেটা জরুরী সেটা হলো যা শিখলেন সেটা ব্যবহার করতে শেখা। ইংরেজি কিংবা অন্য যে কোনো ভাষার শেখার জন্য ঐ ভাষা ব্যবহার করে কথা বলা অন্যতম। অনেক সময় যেটা শিখলেন লজ্জা করে বলতে পারেন না। মজা করে বলেন পেটে বোমা মারলেও কিছু বেরোবে না। এই ধরণের মনোভাব দূর করুন। নিজেকে প্রকাশ করুন বেশি করে। শেখার গুরুত্বপূর্ণ অংশ ভুল করা। আপনি শিখবেন, ভুল করবেন। আর ভুল থেকে শিখবেন।

Source: unsplash.com

কোথায় পাবেন?

ম্যাগাজিন তো পড়তে বলা হলো, আপনি ঠিকও করলেন ম্যাগাজিন পড়েই শিখবেন। কিন্তু পাবেন কোথায়?

বইয়ের দোকান

ম্যাগাজিনের ভাল উৎস হচ্ছে বইয়ের দোকান গুলো। সাধারণত বইয়ের দোকান গুলোতে একটা অংশ থাকে ম্যাগাজিনের জন্য। ম্যাগাজিন কর্নারেই আপনি পেয়ে যেতে পারেন আপনার পছন্দের ম্যাগাজিনটি। হয়তো আপনার কাঙ্ক্ষিত ভাষাটি কিছুটা অপ্রচলিত। সে ক্ষেত্রে আশপাশের অন্য দোকান অথবা আশপাশের এলাকার দোকান গুলোতে খোঁজ করুন।

Source: unsplash.com

লাইব্রেরী

শেখার জন্য বইয়ের যেমন বিকল্প হয় না, তেমনি বইয়ের জন্য লাইব্রেরির বিকল্প হয় না। লাইব্রেরির মূল উদ্দেশ্য জ্ঞান বিতরণ। জ্ঞানের অন্যতম শাখা হচ্ছে বিদেশী সংস্কৃতি। আর সংস্কৃতির অন্যতম উৎস হলো ম্যাগাজিন। তাই যে কোনো লাইব্রেরিতে খুব সহজেই আপনি পেয়ে যেতে পারেন প্রয়োজনীয় ম্যাগাজিনটি।  আপনি যদি মোটামুটি ধরণের কোনো ইউনিভার্সিটির আশেপাশে থাকেন তবে এই সুযোগ কাজে লাগান। বাড়ির পাশের লাইব্রেরিতেই আপনি পেয়ে যেতে পারেন ম্যাগাজিনটি আর চাইলে ফটোকপি করে নিতে পারেন আপনার সুবিধা মতো।

সবশেষে, যেটা বলতে চাই, সেটা হচ্ছে আপনার লাইফ স্টাইলের সাথে যেটা মানানসই সেই পদ্ধতিটিই গ্রহণ করুন। বিল গেটস যে পদ্ধতিতে শীর্ষ ধনী হয়েছেন সেই পদ্ধতি আপনার জন্য কাজ নাও করতে পারে

Feature Image: bustle.com