রোডস স্কলারশিপ নিয়ে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে অধ্যয়নের সুযোগ

Radcliffe Camera Panorama

রোডস স্কলারশিপ একটি প্রাচীনতম এবং সম্ভবত পৃথিবীর সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আন্তর্জাতিক স্কলারশিপ, যার কার্যক্রম শুরু হয়েছিল ১৯০২ সালে। যা বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিভাবান তরুণ-তরুণীদের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার সুযোগ করে দেয়।

রোডস ট্রাস্টের সদস্যগণ; Source: twitter.com

 ১৯০২ সালে সিসিল জন রোডসের উইলের মাধ্যমে এই স্কলারশিপটি প্রতিষ্ঠিত করা হয়। সে সময়ে এই স্কলারশিপটি একটি সত্যিকারের স্বপ্নদর্শী বা অসাধারণ স্কলারশিপ বা বৃত্তি ছিলো। প্রতিষ্ঠার সময়কাল থেকে ১০০ বছর পরেও রোডস স্কলারশিপ বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীনতম এবং সম্ভবত সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আন্তর্জাতিক স্কলারশিপ প্রোগ্রাম।

রোডস স্কলারশিপ পাওয়া দুই শিক্ষার্থী; Source: news.virginia.edu

সারা বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিভাবান তরুণ তরুণীদের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করার সুযোগ করে দেয়া হয় এই স্কলারশিপের মাধ্যমে। ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে রোডস স্কলারশিপ আন্তর্জাতিকভাবে প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

রোডস হাউজে আফ্রিকান শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দেয়া হচ্ছে; Source: rhodeshouse.ox.ac.uk

স্কলারশিপের মূল উদ্দেশ্য হলো বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন প্রতিভাবান তরুণ-তরুণীদের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সুযোগ করে দেয়ার মাধ্যমে সে সকল শিক্ষার্থীর দ্বারা মানব জাতির কল্যাণ এবং সহযোগিতার বন্ধন সৃষ্টি করা।

Loading...

রোডসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে একজন রোডস স্কলার; Source: ft.com

মূলত প্রাথমিকভাবে এই ধারণার উপর ভিত্তি করেই স্কলারশিপটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। তবে বর্তমানে বিশ্বের এমন সব শিক্ষার্থীদের এই স্কলারশিপটি দেওয়া হয়ে থাকে, যাদের মধ্যে নেতৃত্বের সম্ভাবনা রয়েছে এবং পরবর্তীতে যারা বিশ্বের জন্য ভালো একটি প্রভাব ফেলতে পারে।

আপনি যদি রোডস স্কলারশিপ পেতে চান, জেনে নিন কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

রোডস স্কলারশিপ প্রতিভাবান তরুণ তরুণীদের যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করার জন্য অর্থায়ন করে থাকে। প্রতি বছর ১০০ জন শিক্ষার্থী এই স্কলারশিপ পেয়ে থাকে। শিক্ষার্থীদের সকল খরচ এই স্কলারশিপের আওতাভুক্ত থাকে।

সাধারণত ৪টি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে শিক্ষার্থীদের এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়-

১. একাডেমিক রেজাল্ট। অর্থাৎ প্রাইমারি স্কুল থেকে শুরু করে স্নাতক ডিগ্রি পর্যন্ত প্রার্থীর একাডেমিক শ্রেষ্ঠত্ব বিবেচনা করা হয়। এজন্য প্রার্থীর একাডেমিক কোয়ালিফিকেশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

২. পাঠ্যক্রম বহির্ভূত কার্যক্রম অর্থাৎ পড়াশোনার বাহিরে শিক্ষার্থীর কী কী গুণাবলী রয়েছে। যেমন খেলাধুলা, সঙ্গীত, বিতর্ক, নাচসহ এই ধরনের বিভিন্ন শৈল্পিক কাজগুলো।

৩. সততা, সাহস, দায়িত্বশীলতা, সহানুভূতিসহ এই ধরনের নৈতিক গুণাবলীগুলো দেখা হয়।

৪. প্রার্থীর মধ্যে নেতৃত্বের গুণাবলী এবং সহকর্মীদের সাথে কাজ করার যোগ্যতা বিবেচনায় আনা হয়।

আবেদনের যোগ্যতা

  • নাগরিকত্ব বা বাসস্থান: প্রতিটি আবেদনকারীকে অবশ্যই রোডসের তালিকাভুক্ত দেশসমূহের নাগরিক হতে হবে।
  • বয়স: সাধারণত বয়স সীমা প্রার্থীর বসবাসরত এলাকা বা তার দেশের পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। তবে সাধারণ বয়সসীমা ১৯-২৪ বছর। ১৯-২৪ বছর বয়সের সকল প্রার্থীগণ এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • শিক্ষা: প্রার্থীকে অবশ্যই জুন বা জুলাই ২০২০ এর মধ্যে তার স্নাতক বা ব্যাচেলর ডিগ্রি সম্পন্ন করতে হবে। স্নাতক বা ব্যাচেলর ডিগ্রির রেজাল্ট সিজিপিএ ৪ এর মধ্যে অন্তত ৩.৭ থাকতে হবে।

আবেদন করার পদ্ধতি

১. বৃত্তির জন্য আবেদন

রোডস স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে হবে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাবর্ষ শুরু হওয়ার অন্তত এক বছর আগের জুন মাসের ১ তারিখের মধ্যে। অর্থাৎ প্রার্থী যদি ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর থেকে অধ্যয়ন শুরু করতে চায় তাহলে ২০১৯ সালের জুনের ১ তারিখের মধ্যে আবেদনটি করতে হবে।

রোডস ট্রাস্টের একজন সদস্য; Source: ft.com

স্কলারশিপের জন্য প্রার্থীকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদন করার লিংকটি হচ্ছে www.rhodeshouse.ox.ac.uk/apply

২. আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  • একাডেমিক সকল রেজাল্টের মার্কশিট ও সার্টিফিকেট।
  • জীবন বৃত্তান্ত বা সিভি ।
  • বয়স প্রমাণের জন্য জন্ম নিবন্ধন সনদ বা জাতীয় পরিচয়পত্র।
  • ইংরেজিতে দক্ষতা সার্টিফিকেট। যেমন আইইএলটিএস (যেসব দেশে ইংরেজি ১ম ভাষা নয়)।
  • প্রার্থীর ছবি।
  • রেফারেন্স বা প্রত্যয়ন। একাধিক প্রত্যয়নের প্রয়োজন হতে পারে।

৩. প্রার্থীকে অবশ্যই অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকের যেকোন একটি কোর্স বা সাবজেক্ট পছন্দ করতে হবে

সাবজেক্ট বা কোর্স পছন্দ করার ক্ষেত্রে কিছুটা সীমাবদ্ধতা রয়েছে। সাধারণত রোডস অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালযয়ের পূর্ণ সময়ের স্নাতকোত্তর ডিগ্রির জন্য আহবান করে থাকে। যেমন দুই বছর মেয়াদী মাস্টার্স কোর্স।

আবেদনকারীর জন্য লক্ষণীয় বিষয়

  • প্রার্থী যদি স্কলারশিপের জন্য নির্বাচিত হয়, তাহলে প্রার্থীকে হয়তো তার প্রাতিষ্ঠানিক সকল সার্টিফিকেট এবং মার্কশিটের মূল কপি রোডসের নিকট প্রদর্শন করতে হতে পারে।
  • যেসকল বিশিষ্ট ব্যক্তিরা প্রার্থীর জন্য প্রত্যয়ন করবেন, রোডস তাদের সাথে যোগাযোগ করবে এবং তাদের ব্যাপারে ও প্রার্থীর ব্যাপারে বিস্তারিত খোঁজ খবর নেবে। প্রার্থী যদি কোন ভুয়া বা নকল প্রত্যয়ন দাখিল করে থাকে, তবে সেক্ষেত্রে প্রার্থীর আবেদন বাতিল বলে গণ্য হবে।
  • রোডসের নির্বাচিত সকল সফল প্রার্থীদেরকে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিভাগ বা অনুষদের একটি পূর্ণ মেয়াদের স্নাতকোত্তর ডিগ্রির জন্য অফার করা হয়ে থাকে।

রোডস স্কলারশিপের সুবিধাসমূহ

  • রোডস স্কলারশিপ প্রাথমিকভাবে প্রার্থীকে দুই বছর মেয়াদী মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য দেয়া হয়ে থাকে। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির টিউশন ফি সহ সকল খরচ এই স্কলারশিপের অন্তর্ভুক্ত থাকে। এছাড়াও আনুসাঙ্গিক খরচের জন্য প্রার্থীকে বাৎসরিক একটি ফি প্রদান করা হয়ে থাকে। প্রার্থীকে বাৎসরিক ১৫,৯০০ পাউন্ড যা মাসিক হিসেবে ১,৩২৫ পাউন্ড দেয়া হয়ে থাকে।
  • এছাড়াও যাতায়াতের জন্য দুইবার বিমানের টিকিটের খরচ রোডস ফাউন্ডেশন বহন করবে। একটি টিকিট হচ্ছে যুক্তরাজ্যে যাওয়ার জন্য এবং অপরটি হচ্ছে পড়াশোনা শেষে দুই বছর পর প্রার্থীর নিজ দেশে ফেরত আসার জন্য।
  • রোডস তাদের শিক্ষার্থীদের ইন্টারন্যাশনাল হেলথ সারচার্জ দিয়ে থাকে, যা যুক্তরাজ্যের সকল বিদেশি শিক্ষার্থীদের জাতীয় চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকে।
  • বিভিন্ন গবেষণামূলক কাজের জন্য রোডস তাদের শিক্ষার্থীদের অনুদান দিয়ে থাকে। যেমন আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সম্মেলনে যোগ দেওয়া অথবা বিশ্ববিদ্যালযয়ের শিক্ষকদের সাথে কোন গবেষণামূলক কাজ করা।

Feature image source: charlestowncitizens.org

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *