গুগলের ১০ বছরের গবেষণায় ভালো ও দক্ষ ম্যানেজার হওয়ার ১০টি উপায়

যদি কোনো প্রতিষ্ঠানে একজণ দক্ষ ম্যানেজার থাকে, তবে শুধু প্রতিষ্ঠানটিই লাভবান হয় এমনটি নয়। বরং প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত থাকা সকল কর্মচারী, কর্মকর্তা এবং প্রতিষ্ঠানগুলোও লাভবান হয়ে থাকে। তাই গুগল ১০ বছর ধরে শুধুমাত্র এই বিষয়টির উপর গবেষণা চালিয়েছে যে, কোন বিষয়গুলো একজন ম্যানেজারকে পারফেক্ট এবং দক্ষ বা অভিজ্ঞ করে তোলে।

প্রতিষ্ঠানের উন্নতির জন্য পারফেক্ট ম্যানেজার থাকা প্রয়োজন; Source: tewart.com

গবেষণার লক্ষ্য ছিল এই যে, প্রদত্ত ফলাফলের ভিত্তিতে পরবর্তী ম্যানেজারদের সঠিকভাবে প্রশিক্ষণ দিতে পারা। সাধারণত দেখা যায় যে, প্রযুক্তিগত দক্ষতার চেয়ে সংবেদনশীল বুদ্ধিমত্তা অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ। গবেষণার ফলস্বরূপ গুগলের মতে একজন দক্ষ ও ভালো মানের ম্যানেজারের অবশ্যই ১০টি গুণাবলী থাকা উচিত। গুগলের দেওয়া সেই ১০টি তথ্য নিয়ে আজকের এই লেখা। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, গুগলের দেওয়া সেই ১০টি তথ্য সম্পর্কে।

১. একজন ভালো প্রশিক্ষক হওয়া

কোনো সমস্যা উদয় হলে তারপর সমাধান করা হবে, এই অপেক্ষায় না থেকে একজন ভালো মানের ম্যানেজার তার টিমমেটদের প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করে থাকে। তিনি তার টিমমেটদের শিক্ষা দেন সমস্যাগুলো সম্পর্কে এবং সমস্যাগুলো সমাধান সম্পর্কে।

একজন ভালো মানের ম্যানেজার ভালো প্রশিক্ষকও বটে; Source: businessinsider.com

প্রয়োজনে তিনি টিমের মধ্যে ছোট ছোট গ্রুপ করে তাদেরকে আলাদা আলাদা সমস্যার সমাধানে অভিজ্ঞ করে তোলেন এবং যখন সমস্যার সম্মুখীন হয় তখন তাদেরকে সেই অনুযায়ী কাজ ভাগ করে দেন। একজন ভালো মানের ম্যানেজার হওয়ার জন্য এই গুণটি থাকা অত্যাবশ্যক।

২. টিমকে শক্তিশালী বা ক্ষমতায়ন করা এবং মাইক্রো-ম্যানেজ এড়িয়ে চলা

গুগলের এই গবেষণায় এমন একজন ভালো মানের কর্মকর্তা বা কর্মচারীকে পাওয়া যায়নি, যারা বলেছে আমি মাইক্রো ম্যানেজড হতে পছন্দ করি। বাংলায় মাইক্রো ম্যানেজড শব্দের তাৎপর্য হচ্ছে, কর্মীদেরকে খুব কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করা, কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা বা অধীনস্থ কর্মচারীদের তাদের কাজ বারবার মনে করিয়ে দেওয়া এবং ছোট ছোট ভুলগুলো ধরিয়ে দেওয়া এবং কোনো প্রকার ছাড় না দেওয়ার মতো বিষয়গুলো।

Loading...

টিমকে শক্তিশালী বা ক্ষমতায়ন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ; Source: businessinsider.com

বিপরীতে তারা সকলেই বলেছেন, একজন ভালো ও দক্ষ ম্যানেজারের গুণ হচ্ছে, তার অধীনে কাজ করা কর্মীদের কাজের স্বাধীনতা দেওয়া, কর্মীদের ছোট ছোট ভুল করার স্বাধীনতা দেওয়া, কর্মীদের আইডিয়াগুলোকে গুরুত্ব দেওয়া, কর্মচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় সকল শারীরিক সরঞ্জামাদি সরবরাহ করা, কর্মীদের মতামতকে গুরুত্ব দিয়ে তাদের উপযোগী করে কাজের সময়সূচি তৈরি করা এবং কর্মীদের কাজের পরিবেশ তৈরি করে দেওয়ার মতো বিষয়গুলো।

৩. সাফল্য এবং কল্যাণের জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করে একটি অন্তর্ভুক্ত দলগত পরিবেশ তৈরি করা

অন্য একটি গবেষণা করে গুগল বলেছে যে, একটি টিমের পারফরম্যান্সের বৃহত্তম চাবিকাঠি হচ্ছে মনস্তাত্ত্বিকভাবে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করা। । যেমন, উচ্চ মানসিকতা সম্পন্ন কোনো ব্যক্তি তার টিমের মেম্বারদের জন্য যেকোনো প্রকার ঝুঁকি নিতেও দ্বিধা বোধ করে না।

টিমের কর্মীরাও মাঝে মাঝে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে; Source: businessinsider.com

তারা একজন ভালো মানের ম্যানেজারের অধীনে কাজ করার কারণে, তাদের ভিতরে এই আত্মবিশ্বাস জন্মায় যে, তাদের যেকোনো ছোট ভুলের জন্য তাদেরকে কোন প্রকার জিজ্ঞাসা করা হবে না বা কোন ধরনের শাস্তি দেওয়া হবে না।

৪. কার্যক্ষম এবং ফলাফল ভিত্তিক

একজন ভালো ম্যানেজার তারকা খেলোয়াড়ের চেয়েও সেরা হয়ে থাকে। তিনি তার সতীর্থদের আরও ভালো ও দক্ষ করে গড়ে তোলে।

একজন ভালো ম্যানেজার তারকা খেলোয়াড়ের চেয়েও সেরা হয়ে থাকে Source: businessinsider.com

যখনই প্রয়োজন হবে তখনই তিনি সঠিক উদাহরণ স্থাপন করে, সেই মোতাবেক কার্যাবলী সাজাবেন এবং অপ্রয়োজনীয় ও নোংরা জিনিসগুলো বর্জন করবে। একজন ভালো মানের ম্যানেজার সাহসী এবং নির্ভীক হবে, তার এই গুণগুলো তার টিমের সদস্যদের অনূপ্রাণিত করবে।

৫. ভালো কমিউনিকেশন স্কিল, ভালো শ্রোতা এবং উপস্থাপক

একজন অভিজ্ঞ ও ভালো মানের ম্যানেজার একজন ভালো শ্রোতাও হয়ে থাকে। এটি তার টিমমেটদের ভালোভাবে বোঝাতে এবং সহানুভূতি প্রদর্শন করতে সহায়তা করে। একজন ভালো ম্যানেজার অনুধাবন করে জ্ঞানই হচ্ছে শক্তি।

একজন ভালো ম্যানেজার অনুধাবন করে জ্ঞানই হচ্ছে শক্তি; Source: businessinsider.com

যার ফলে তিনি কর্মীদের মাঝে তার জ্ঞান বা জানা তথ্যগুলো সহজেই শেয়ার করেন এবং কর্মীদেরকে সেই জ্ঞানে দক্ষ করে তোলেন। ফলে পরবর্তীতে সেই কাজগুলো তিনি শুধু একাই নন, বরং কর্মীদের দিয়েও করাতে পারেন।

৬. কর্মজীবন বিকাশের জন্য সমর্থন দেওয়া এবং কর্মক্ষমতা পর্যালোচনা করা

অভিজ্ঞ ম্যানেজাররা আন্তরিক হয়ে থাকেন এবং প্রশংসার মাধ্যমে তাদের কর্মীদের উৎসাহিত করে থাকে। তবে নির্দিষ্ট সময়ে সমালোচনামূলক প্রতিক্রিয়া জানাতেও তারা ভয় পায় না। একজন অভিজ্ঞ ম্যানেজার কৌশলগতভাবে এবং গঠনমূলকভাবে তিনি তার আচার-আচরণ কর্মীদের উপর প্রয়োগ করে থাকেন।

৭. টিমের জন্য সুস্পষ্ট দূরদর্শিতা ও কৌশল

একজন দুর্দান্ত ম্যানেজার সঠিকভাবে জানেন যে, তার টিমটি এখন কোথায় আছে, তারা কোন লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে চলেছে এবং লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য তাদের কী কী করা উচিত। তিনি তার কৌশল ও দূরদর্শিতার মাধ্যমে টিমকে সঠিক ট্র্যাকে বা রাস্তায় রাখার জন্য সহায়তা করেন।

৮. টিমকে পরিচালনা করার জন্য প্রযুক্তিগত দক্ষতা

একজন দক্ষ ও ভালো ম্যানেজার তার দৈনন্দিন কাজগুলো সম্পর্কে ভালোভাবেই বোঝেন এবং অনুধাবন করেন। এমনকি তিনি তার কর্মীদের দৈনিক কী ধরনের কাজ করতে হবে এবং কর্মীদের কী ধরনের সমস্যার মোকাবিলা করতে হবে, সে সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন।

একজন ভাল ম্যানেজারের প্রযুক্তিগত দক্ষতা থাকা খুবই প্রয়োজন; Source: businessinsider.com

একজন ভালো ম্যানেজারকে যদি নতুন কোন ডিপার্টমেন্টে স্থানান্তরিত করা হয়, তবে তিনি উক্ত ডিপার্টমেন্টের কাজগুলো বোঝার জন্য উপযুক্ত সময় নেবেন, এবং তার কর্মীদেরকে কাজ করানোর পূর্বে বা পরামর্শ দেওয়ার পূর্বে তিনি কর্মীদের নিকট বিশ্বস্ততা অর্জন করবেন যে, তিনি একজন ভালো এবং দক্ষ ম্যানেজার।

৯. কার্যকরভাবে সহযোগিতা করা

একজন খারাপ ম্যানেজারের স্বভাব হচ্ছে, তিনি তার টিমকে একঘেয়ে হিসেবে দেখেন এবং তিনি তার প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য টিমের বিপক্ষে ষড়যন্ত্র করেন এবং নাশকতামূলক কাজ করেন।

ভালো ম্যানেজারের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে প্রতিষ্ঠান কল্যাণের জন্য কাজ করা; Source: businessinsider.com

বিপরীতে একজন দুর্দান্ত এবং ভালো ম্যানেজার তার টিমকে সব সময় নতুনত্বের মাধ্যমে কাজ করিয়ে থাকেন। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের উন্নতির জন্য অন্যান্য টিমগুলোকেও কাজে উৎসাহিত করে থাকেন এবং অন্যান্য টিমের ভালো চেয়ে থাকেন।

১০. ভালো পরিকল্পনাকারী

ভালো ও দক্ষ ম্যানেজাররা কারোর দ্বারা প্ররোচিত হয় না, বরং তারা তাদের দক্ষতা দ্বারা ভালো পরিকল্পনা করে থাকে। তারা নির্দিষ্ট তথ্যগুলো জানার পর এবং তার টিমের সদস্যদের চিন্তা ভাবনা এবং দৃষ্টিভঙ্গি বিবেচনা করার পর, সমস্ত বিষয়গুলোকে একসাথে করে তার টিমকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করে।

একজন দক্ষ ম্যানেজারকে ভালো পরিকল্পনাকারী হওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ; Source: businessinsider.com

এমনকি যদি কোনো কঠিন সিদ্ধান্তের প্রয়োজন হয়, তবে তিনি কারোর দ্বারা প্ররোচিত না হয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। যদিও তার সিদ্ধান্ত সকলেই সমর্থন নাও করতে পারে। তবে একজন ভালো ম্যানেজারের গুণ হচ্ছে, সকলের কল্যাণের জন্য তার সিদ্ধান্তের উপরে অটুট থাকা।

যদি কোনো প্রতিষ্ঠান গুগলের দেওয়া উপরোক্ত ১০টি তথ্যের ভিত্তিতে তাদের ম্যানেজারদের প্রশিক্ষণ করিয়ে থাকে, তবে আশা করা যায় প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে ব্যাপক পরিবর্তন ও প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন সাধিত হবে।

Feature image source: businessinsider.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *