যেভাবে ইন্টারভিউ বোর্ডের প্রশ্নের উত্তর করবেন

আপনি যখন কোনো চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাবেন, তখন হয়তো আপনাকে একটি সাধারণ প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে। আপনি কেন আমাদের সাথে কাজ করতে চান? খুবই সাধারণ একটি প্রশ্ন। ইন্টারভিউ বোর্ডে সাধারণত এই ধরনের প্রশ্ন করা হয়ে থাকে প্রার্থীকে কিছুটা বিভ্রান্তিতে ফেলে দেওয়ার জন্য। এই ধরনের বিভ্রান্তিকর প্রশ্ন করা হয় প্রার্থীর কতোটুকু যোগ্যতা বা ট্যালেন্ট রয়েছে, তা বোঝার জন্য। তবে ইন্টারভিউ বোর্ডে কখনোই আপনি প্রশ্নকর্তাকে উল্টো প্রশ্ন করতে পারবেন না, আপনারা কেন আমাকে নিতে চান!

ইন্টারভিউ বোর্ডে আত্মবিশ্বাসী থাকা খুবই জরুরী; Source: internboard.ametsoc.org

কেননা ইন্টারভিউ বোর্ডে সাধারণত যারা প্রশ্নকর্তা থাকেন, তাদের এরকম শত শত ইন্টারভিউ নেওয়ার পূর্বের অভিজ্ঞতা থাকে। তারা সহজেই বোঝে কোন ধরনের প্রশ্ন এবং উত্তরে সৃজনশীলতা রয়েছে। যেমন, আমি আপনাকে আমার কোম্পানির জন্য নিয়োগ দিতে চাই। এই কথাটির চেয়ে, আপনি কি আমাদের কোম্পানিতে কাজ করতে আগ্রহী রয়েছেন? এই কথাটির মাঝে বেশ সৃজনশীলতা রয়েছে। কোনো একটি প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ অবশ্যই চাইবে তার প্রতিষ্ঠানে যে ব্যক্তি কাজ করতে আসবে তার অবশ্যই প্রতিষ্ঠানের কাজের প্রতি এবং প্রতিষ্ঠানের প্রতি আগ্রহ রয়েছে।

সাক্ষাৎকার পর্বে যেকোনো কঠিন প্রশ্নের উত্তর দিতে প্রস্তুত থাকতে হবে; Source: dreamstime.com

তাই তারা এ ধরনের প্রশ্ন করে প্রার্থীর আগ্রহ সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে থাকে। এজন্য প্রার্থীকে অবশ্যই ইন্টারভিউ বোর্ডে প্রমাণ করতে হবে উক্ত কোম্পানিতে কাজ করার যোগ্যতা এবং আগ্রহ উভয়টিই তার রয়েছে। কর্তৃপক্ষ কখনোই চাইবে না শুধু যোগ্যতার ভিত্তিতে প্রার্থী নিয়োগ দিতে। নিয়োগ দেওয়ার পূর্বে তারা দেখবে প্রার্থীর আগ্রহ এবং যোগ্যতা দুটোই রয়েছে কিনা! তাই একজন প্রার্থীর এই বিষয়টির প্রতি নজর রাখা খুবই জরুরী।

সাক্ষাৎকারেই কেন এই ধরণের প্রশ্ন করা হয়ে থাকে?

যিনি সাধারণত ইন্টারভিউ বা সাক্ষাৎকার নেবেন, তাকে প্রধানত দুইটি বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখতে হয়। প্রথমটি হলো প্রার্থীর যোগ্যতা এবং আচরণ এই পদের জন্য উপযুক্ত কিনা! এবং দ্বিতীয়টি হলো প্রার্থীর নিকট হতে প্রতিষ্ঠান স্বল্প মেয়াদে এবং দীর্ঘমেয়াদে কেমন সার্ভিস পেতে পারে এবং প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রার্থীর কী পরিকল্পনা রয়েছে! তা জানতে পারা।  

ইন্টারভিউ বোর্ডে সাধারণত প্রথম প্রশ্ন এই ধরনের হয়ে থাকে, প্রার্থী প্রতিষ্ঠানের জন্য কী করতে পারবে! এর ফলে যিনি সাক্ষাৎকার নেবেন, তিনি খুব সহজেই বুঝতে পারেন প্রার্থী প্রতিষ্ঠানে ভালোভাবে চাকরি করতে পারবেন কিনা এবং সময়মতো তার উপর অর্পিত কাজগুলো সম্পন্ন করতে পারবে কিনা।

Loading...

ইন্টারভিউ বোর্ডে প্রশ্নকর্তাদের মন জয় করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ; Source: blog.bankfrick.li

এছাড়াও ইন্টারভিউ বোর্ডে আরোও কিছু সাধারণ প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। যেমন, আপনি আপনার টিমমেটদের সাথে ভালোভাবে কাজ করতে পারবেন কিনা? ইতোপূর্বে আপনার এই লাইনে কাজের কোনো অভিজ্ঞতা রয়েছে কিনা? আপনি এই মুহূর্ত থেকে কাজ করতে প্রস্তুত রয়েছেন কিনা? এই ধরনের কমন প্রশ্নগুলো সাধারণত ইন্টারভিউ বোর্ডে করা হয়ে থাকে প্রার্থীর কর্মদক্ষতা ও কাজ করার মানসিকতা বোঝার জন্য।

ইন্টারভিউ বোর্ডের প্রশ্নের ধরন সাধারণত প্রতিষ্ঠানের পণ্য, ব্যবস্থাপনা এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াবলীর উপর ভিত্তি করে হয়ে থাকে। এছাড়াও যিনি সাক্ষাৎকার নেবেন, তার ব্যক্তিগত পছন্দের উপর প্রশ্নের ধরন নির্ভর করবে। প্রশ্ন যেমনই হোক না কেন, সকল প্রশ্নের সম্মুখীন হয়ে প্রার্থীকে তার উত্তর প্রদান করতে হয় এবং উক্ত চাকরির জন্য তার যোগ্যতার প্রমাণ দিতে হয়।

উত্তর দেয়ার পূর্বে প্রশ্নকর্তাদের মনোভাব ভালোভাবে বুঝুন; Source: allonboard.de

 এছাড়াও, আপনি কেন আমাদের প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে চান? এই প্রশ্নটির মাধ্যমে কর্তৃপক্ষ জানতে চান প্রার্থী কেন তার পূর্বের চাকরি ছেড়ে দিতে চায়! তিনি কী কী সুবিধা পূর্বের কোম্পানিতে পেতেন এবং অতিরিক্ত কী কী সুবিধার জন্য তিনি এই কোম্পানিতে যোগ দিতে চান! এছাড়াও কেমন বেতনে প্রার্থী কোম্পানিতে কাজ করতে আগ্রহী রয়েছেন তাও তারা জানতে চান। প্রায়ই দেখা যায়, এই ধরনের প্রশ্নের পরও অনেক যোগ্য প্রার্থীকে কর্তৃপক্ষ পেয়ে যায়। তবে প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও কাজের ধরনের উপর ভিত্তি করেই কর্তৃপক্ষ যোগ্য প্রার্থী নিয়োগ দিয়ে থাকে।

সাক্ষাৎকার পর্বের প্রশ্নকর্তাকে ভালোভাবে বুঝুন

পৃথিবীতে প্রত্যেক ব্যক্তিই তার নিজস্ব পছন্দগুলোকে প্রাধান্য দিয়ে থাকে। সেজন্যই একজন প্রশ্নকর্তার নিকট খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, যে প্রার্থী সাক্ষাৎকার দিতে এসেছে তার নিজস্ব পছন্দগুলো সম্পর্কে জানতে পারা। এজন্যই একজন প্রার্থীর উচিত প্রতিষ্ঠান যে বিষয়গুলোর উপর সাধারণত ফোকাস করে, সেগুলো সম্পর্কে আগে থেকেই খুব ভালোভাবে পড়াশোনা করে নেওয়া এবং সাক্ষাৎকার পর্বে বিষয়গুলোর উপর তার যথাযথ উত্তরগুলো প্রয়োগ করা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, একটি প্রতিষ্ঠানের নিকট সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে তারা যে প্রার্থীকে নিয়োগ দেবে, সেই প্রার্থীর প্রতি তাদের বিশ্বাস অর্জন।

ইন্টারভিউ বোর্ডের প্রশ্নকর্তারা বেশ অভিজ্ঞ হয়ে থাকেন; Source: www.editorial.sg

তাই সাক্ষাৎকার পর্বের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে আপনি প্রশ্নকর্তার নিকট কতটুকু বিশ্বস্ততা অর্জন করতে পেরেছেন। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের সাথে আপনি কতটুকু গর্বের সাথে কাজ করে যেতে পারবেন এবং প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী! এই বিষয়গুলো প্রশ্নকর্তার নিকট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই সাক্ষাৎকার পর্বে প্রশ্নকর্তার সম্মুখে অবশ্যই আপনাকে এসব বিষয়াবলীর উপর যথাপোযুক্ত উত্তর দিতে হবে, যেন প্রশ্নকর্তা আপনার উত্তর শুনে আপনার প্রতি বিশ্বাস এবং ভরসা করতে পারেন।

সাক্ষাৎকার পর্বে যে বিষয়টি অবশ্যই বর্জনীয়

আপনার চাকরির সাক্ষাৎকার পর্বে যখন প্রশ্নকর্তা আপনাকে প্রশ্ন করবে, আপনি কেন আমাদের প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে চান? অনেকেই হয়তো কিছু না ভেবেই বেতনের কথা বলে বসবেন। সাক্ষাৎকার পর্বে এই ভুলটি কখনোই করা যাবে না। বেতন সম্পর্কে আলোচনার পূর্বে অবশ্যই আপনাকে প্রমাণ করতে হবে আপনি তাদের প্রতিষ্ঠানের জন্য যোগ্য প্রার্থী।

কাজ করার জন্য নিজেকে সর্বদা প্রস্তুত রাখা জরুরী; Source: jobpostings.ca

যখন আপনি ইন্টারভিউ বোর্ডে প্রশ্নকর্তাদের প্রমাণ করতে পারবেন তাদের প্রতিষ্ঠানের জন্য আপনি যোগ্য, তখন তারাই তাদের প্রতিষ্ঠানের উক্ত পদের যোগ্য প্রার্থীর জন্য যে বেতন নির্ধারণ করে রেখেছে, সে বিষয়ে তারা আলোকপাত করবে। অথবা যখন প্রশ্নকর্তা আপনার নিকট থেকে জানতে চাইবে আপনি কী পরিমান বেতনে উক্ত প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে ইচ্ছুক?

শুধুমাত্র তখনই আপনি বেতন সম্পর্কে তাদের সাথে আলাপ করুন। কেন আপনি তাদের প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে চান? যদি এই প্রশ্নের স্মার্ট কোন উত্তর আপনার নিকট না থাকে অর্থাৎ প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে আপনার আগ্রহগুলো যদি স্পষ্টভাবে ব্যাখ্যা করতে না পারেন তবে সাক্ষাৎকার দেওয়া থেকে বিরত থাকুন অথবা ইন্টারভিউ বাতিল করুন।

Feature image source: forbes.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *